কবিতা জোড়

অদ্রি তলে হিমাদ্রী

সহিদুল ইসলাম সাঈম

হালকা হাওয়া বইছে চারদিকে। ভেবেছিলাম শরতের ঝলমলে দিনের অনুভূতিটাকে স্মরণীয় করে রাখতে প্রকৃতির এ প্রচেষ্ঠা। কিন্তু কিছুক্ষণ পর ঝলমলে দিনের সৌন্দর্যটাকে তছনছ করে দিয়ে আসল বৃষ্টি। তারি সাথে বইছে দমকা হাওয়া। মনে হচ্ছে আমার দেহে যেন ঝরনার জল অবিরল বয়ে চলছে। এ অনুভূতি নিয়ে সাগরের ঢেউয়ের মতো রাস্তা দিয়ে চলতে লাগলাম।

কিন্তু একি! দেখলাম এক আয়তলোচনা নীমিলিতলোচনে দাঁড়িয়ে আছে। তার হাসি যেন হাসি নয়; নদীর কলতান। মুখ ভঙ্গিমা; যেন ফুটন্ত লাল গোলাপ।

নাম জিজ্ঞেস করলাম। স্বভাবসুলভ রসিকতায় উত্তর আসল আমি ঐ নীল আকালের নীলিমা। মেয়েটি কোথায় হারালো জানিনা। তবে গ্রীষ্মের দাবদাহে অতীষ্ঠ তৃষ্ণার্ত কাকটির মতো সামান্য প্রশান্ত হাওয়ার মধ্যে নীলিমার অস্তিত্ব খোঁজে পায় আমার এ অবোধ মন।

বর্ষার আকষ্মিক বৃষ্টির মাঝে আমি যেন তার মধুর কন্ঠ শুনতে পাই। আর শরত আসলে তো কথাই নেয়! আমি তাকে দেখি নীলিমায়। ওগো অপরিচিতা তুমি কোনোদিন হারাবে না। তুমি আমার মাঘের সন্ন্যাসী। আর বসন্তের বাসন্তী।

 

ফেইসবুক থেকে করা মন্তব্যসমূহঃ

একই রকম আরোও

মন্তব্য করুনঃ

avatar
  Subscribe  
Notify of

আরোও দেখুন

Close
Close